কানাডা যেতে কত পয়েন্ট লাগে, কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা খরচ

কানাডা যেতে কত পয়েন্ট লাগে – কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা খরচ

মানসম্মত পড়াশোনার দিক থেকে কানাডা অন্যতম। তাছাড়া কানাডা পড়াশোনার কিছু সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। যেমন সেখান থেকে আপনি যদি উচ্চশিক্ষার কোন ডিগ্রী অর্জন করেন তাহলে আপনি কানাডার নাগরিকত্ব পেতে পারে। সৌদি তারা দেখে আপনার রেজাল্ট ভাল এবং আপনি বুদ্ধিমান তাহলে তারা আপনাকে নাগরিকত্ব দিয়ে কানাডায় রেখে দিবে। এই সুবিধার জন্য বাংলাদেশ ও ভারত থেকে অসংখ্য শিক্ষার্থী কানাডা পড়াশোনার জন্য প্রতি বছর পালিত হয়।

আপনি যদি কানাডায় গিয়ে উচ্চশিক্ষা লাভ করতে চান তাহলে আপনিও যেতে পারবেন। তবে এর জন্য আপনাকে IELTS Score ভালো থাকতে হবে। যদি আপনার IELTS Score ভালো না থাকে তাহলে আপনি কানাডা যেতে পারবেন না। এই ব্যাপারে কানাডার অনেক কঠোর আইন রয়েছে। তাই চলুন এবার জেনে নেয়া যাক কানাডা যেতে Ielts পয়েন্ট কত লাগে।

Table of Contents

কানাডা যেতে কত পয়েন্ট লাগে

কানাডা দেওয়ার জন্য আপনাকে ইংরেজি ভাষার প্রতি দক্ষ হতে হবে। ইংরেজি ভাষার প্রতি যদি আপনার দক্ষতা না থাকে তাহলে আপনি কানাডা যেতে পারবেন না। ইংরেজি ভাষার প্রতি দক্ষতা বলতে এখানে কানাডা IELTS পয়েন্ট এর কথা বুঝিয়েছে। যদি আপনার এখানে IELTS পয়েন্ট ভালো থাকে তাহলে আপনি কানাডা যেতে পারবেন।

কানাডা যাওয়ার জন্য আপনার IELTS Score ৬.০০ অথবা এর উপরে লাগবে। যদি আপনার পয়েন্ট কম থাকে তাহলে আপনি কানাডা যেতে পারবেন না। আর যদি আপনার পয়েন্ট এর চেয়ে বেশি থাকে তাহলে আপনার স্টুডেন্ট ভিসা পেতে অত্যন্ত সহজ হয়ে যাবে। তাই কানাডা যাওয়ার পূর্বে IELTS score ভালো করে তারপর কানাডা ভিসার জন্য আবেদন করবেন।

তবে মনে রাখবেন ইংরেজি ভাষার প্রতি কেজি দক্ষতা না থাকে তাহলে আপনি কানাডা গিয়ে পড়াশোনা করে কিছু কইতে পারবেন না। কেননা সেখানে সকল ক্লাসের লেকচার ইংরেজিতে দেয়া হয়। চাইলে যদি আপনার ইংরেজি দক্ষতা না থাকে তাহলে আপনি ক্লাসের লেকচার গুলো বুঝতে পারবেন না। যার কারনে আপনার রেজাল্ট খারাপ হবে।

কানাডা যেতে ielts পয়েন্ট কত লাগে

কানাডা যেতে IELTS পয়েন্ট ৬.০০ অথবা এর উপরে হতে হবে। IELTS Score ৬.০০ এর নিচে হলে আপনি কানাডা যেতে পারবেন না। তবে আপনার IELTS Score ৭/৮ হলে আপনি খুব দ্রুত স্টাডি পারমিট ভিসা পেয়ে যাবে না। স্টাডি পারমিট ভিসা ও স্টুডেন্ট ভিসা এ কই। সুতরাং বুঝতেই পারছেন এখানে IELTS Score এর মূল্য বেশি। তাই স্টুডেন্ট ভিসায় কানাডা যেতে চাইলে IELTS Score ৬.০০ এর উপরে থাকতে হবে।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা

সারাবিশ্বে যতগুলো মানসম্মত বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে তার মধ্যে কানাডায় মানসম্মত বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা বেশি। তাইতো হাজার হাজার শিক্ষার্থী প্রতিবছর কানাডা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে চাই। আপনারা যারা কানাডায় পড়াশোনা করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কেননা কানাডা পড়াশোনা করার পূর্বে জেনে রাখা ভালো স্টুডেন্ট ভিসা পেতে আপনার কি কি প্রয়োজন।

যদি আপনি এগুলো সম্পর্কে অবগত না হন তাহলে আপনাকে ভোগান্তির শিকার হতে হবে। পার্ক কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়া খুবই সহজ। কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা পেতে আপনার শুধু প্রয়োজন IELTS পয়েন্ট। আপনার যদি IELTS পয়েন্ট ভালো থাকে তাহলে আপনি কানাডা খুব সহজেই যেতে পারবেন। এখানে আপনার কোন ভোগান্তির শিকার হতে হবে না।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়ার জন্য প্রথমে আপনাকে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। এরপর আপনি যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চান সে বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফার্মেশন লেটার লাগবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফার্মেশন লেটার থাকলে আপনার স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়া সহজ হবে।

কানাডা স্টুডেন্ট ভিসা খরচ

স্টুডেন্টদের জন্য পৃথিবীর সকল দেশ কিছু ছাড় দিয়ে থাকে। যদি আপনি স্টুডেন্ট ভিসায় কানাডা যেতে চান তাহলে আপনার খরচ পড়বে ৫ লক্ষ টাকা। আর আপনি যদি ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় কানাডা যেতে চান তাহলে আপনার খরচ পড়বে ৬ – ৭ লক্ষ টাকা। এখানে বুঝতেই পারছেন স্টুডেন্টদের জন্য কানাডা সরকার কিছুটা ছাড় দিয়ে রেখেছে।

তাছাড়া আপনি যদি স্কলারশিপ নিয়ে কানাডা পড়তে যেতে চান সেক্ষেত্রে আপনার খরচ কম পড়বে। কানাডা ভিসা আবেদনের সময় স্কলারশিপের জন্য একটি আবেদন করবেন। যদি কানাডা কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে আপনাকে স্কলারশিপ দিয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আপনার খরচের পরিমাণ অনেক কমে যাবে।

Read More

টাকা ইনকাম করার অ্যাপ

স্মার্ট আইডি কার্ড সংশোধন করার নিয়ম

ফ্লাই দুবাই এয়ারলাইন্স টিকিট চেক, ভাড়া ও ফ্লাইট সিডিউল