দুবাই কোন কাজের চাহিদা বেশি ও বেতন বেশি

দুবাই কোন কাজের চাহিদা বেশি ও বেতন বেশি

পৃথিবীর যে সকল দেশে বাংলাদেশী প্রবাসী রয়েছে তার মধ্যে দুবাই অন্যতম। বাংলাদেশী প্রবাসীদের মধ্যে দুবাই যাওয়ার চাহিদা সবচেয়ে বেশি। কেননা দুবাইয়ে কাজের বেতন বেশি এবং সুযোগ-সুবিধাও বেশি। কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে তেমন কোন শ্রমিক নিয়োগ দিচ্ছে না দুবাই সরকার। কিন্তু যদি আপনার পরিচিত কেউ দুবাই থেকে থাকে তবে সে আপনাকে ভিসা দিতে পারবে। সে যদি তার কোম্পানির কাছে আপনার জন্য আবেদন করে তাহলে ভিসা বের করতে পারবে।

তাই দুবাই ভিসা বের করার জন্য তাদের সাথে আলোচনা করতে পারেন। বেশিরভাগ মানুষ জানতে চায় দুবাই কোন কাজের চাহিদা বেশি। কেননা দুবাই যাওয়ার পূর্বে জেনে নেওয়া ভালো দুবাইয়ে কোন কাজের সবচেয়ে বেশি চাহিদা রয়েছে। কেননা যে কাজের চাহিদা যত বেশি সে কাজের জন্য শ্রমিক সবচেয়ে বেশি নিয়োগ দেয়া হয়ে থাকে এবং সেখানে সুযোগ-সুবিধার পরিমাণ ও বেতনও বেশি থাকে। চলুন এবার জেনে নেই দুবাই কোন কাজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি ও বেতন বেশি।

Table of Contents

দুবাই কোন কাজের চাহিদা বেশি

দুবাই বিভিন্ন কাজে রয়েছে যেগুলোর চাহিদা অনেক। তার মধ্যে অন্যতম ড্রাইভিং, ওয়েল্ডিং, প্লাম্বিং, কনস্ট্রাকশন, হোটেল বয়, ক্লিনার ও ইলেকট্রিশিয়ান। এগুলোর মধ্যে যদি আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকে, যদি আপনি ওয়েল্ডিং, প্লাম্বিং ও ইলেকট্রিক কাজ ভালো পারেন তাহলে দুবাইয়ে আপনার চাহিদা থাকবে সবচেয়ে বেশি। কেননা দুবাইয়ে যে সকল কাজে রয়েছে তার মধ্যে এগুলোর চাহিদা বেশি ও বেতন বেশি দিয়ে থাকে।

তাই দুবাই যাওয়ার পূর্বে এ সকল কাজের প্রতি দক্ষতা অর্জন করে তারপর ভিসা নিয়ে দুবাই যাবেন। এক্ষেত্রে আপনি নানা ধরনের সুযোগ সুবিধা পাবেন এবং বেতন বেশি পাবেন। কেননা প্রবাসীরা বিদেশ যায় বেশি টাকা কামানোর উদ্দেশ্যে। তাই এখানে মুখ্য বিষয় বেতন। তাই সকলের উচিত যে সকল কাজে বেতন বেশি থাকে সে সকল কাজের প্রতি দক্ষতা অর্জন করে ভিসা নিয়ে বিদেশ যাওয়া।

এছাড়াও দুবাইয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ চলে কনস্ট্রাকশনের। আপনি যদি ভাল কনস্ট্রাকশন এর কাজ পারেন তাহলে আপনার চাহিদা রয়েছে দুবাইয়ে। যদিও কনস্ট্রাকশনের কাজ একটু কঠিন তবুও এ কাজের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এছাড়াও এ কাজের জন্য বেতন ভালো দিয়ে থাকে দুবাইয়ের কোম্পানিগুলো। এছাড়াও ক্লিনার ও হোটেল বয়ের কাজ এর জন্য অনেক কোম্পানি শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে ভাল বেতনে।

দুবাই কোন কাজের বেতন বেশি

দুবাই যে সকল কাজ রয়েছে তার মধ্যে ড্রাইভিং, প্লাম্বিং, হোটেল বয় ও ইলেকট্রিশিয়ান এর বেতন সবচেয়ে বেশি। আমি এখানে শুধু তাদের ভিসা নিয়ে যারা দুবাই যায় তাদের জন্য বেতনের পরিমাণ তুলে ধরলাম। কেননা দুবাই সরকারি কোষাগারে বেতন সবচেয়ে বেশি দিয়ে থাকে। এক্ষেত্রে তারা তাদের ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, হিসাব রক্ষক, কোম্পানির ম্যানেজার এগুলোর বেতন অনেক বেশি হয়ে থাকে।

আর আমি যে সকল কাজে বেতনের পরিমাণ বেশি ধরেছি তা হলো কাজের ভিসার বেতন। দুবাই ড্রাইভিং ভিসা নিয়ে গেলে আপনার বেতন হবে ৬০ হাজার টাকার উপরে। প্রথম অবস্থায় আপনি ৬০,০০০ টাকা পাবেন। আস্তে আস্তে আপনার বেতন আরো বেশি হবে। আর যদি আপনি প্লাম্বিং অথবা ইলেকট্রিশিয়ানের কাজ ভালো পারেন তাহলে আপনার বেতন হবে ৭০ হাজার টাকার উপরে।

দুবাই কোন কাজের বেতন কত

অনেকেই জানতে চায় দুবাই কোন কাজের বেতন কত। কেননা যে কাজের বেতন বেশি দিয়ে থাকে তারা সে কাজের ভিসা নিয়ে দুবাই যেতে চায়। আজকের এই পোস্টে আমি দুবাই কোন কাজের বেতন কত তা বিস্তারিত তুলে ধরেছি। তাই দুবাই কাজের বেতন জানতে নিচের অংশ দেখুন।

ইলেকট্রিশিয়ান – ইলেকট্রিক কাজ ভালো জানলে দুবাইয়ে আপনার বেতন হবে ৭০ হাজার থেকে ৯০ হাজার টাকা।

ড্রাইভিং – দুবাই ড্রাইভিং কাজের বেতন ৬০ হাজার থেকে ৮০ হাজার টাকা।

হোটেল বয় – দুবাই হোটেল বয়ের বেতন হয়ে থাকে ৫০ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা।

প্লাম্বিং – আপনি যদি পাইপ ফিটিং এর কাজ ভাল পারেন তাহলে আপনার বেতন হবে ৭০ – ৯০ হাজার টাকা।

কন্সট্রাকশন – দুবাই কনস্ট্রাকশন কাজের বেতন ৫০ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা।

দুবাই সর্বনিম্ন বেতন কত

দুবাই সর্বনিম্ন কাজের বেতন ৩০ হাজার টাকা।

দুবাই কাজের বেতন

দুবাই কাজের বেতন অনেক ভালো দিয়ে থাকে। বিশেষ করে বর্তমানে যারা দুবাই রয়েছে তাদের বেতন ৫০ হাজার টাকার উপরে। বর্তমানে দুবাই কাজের ভিসা নিয়ে গেলে আপনি অনাএসে ৬০ হাজার টাকা উপার্জন করতে পারবেন। দুবাইয়ে বর্তমানে কাজের বেতন ৫০ হাজার থেকে ৯০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এখানে বেতনের হিসাব ধরা হয়েছে আপনি যদি কাজের ভিসা নিয়ে সেখানে যান তার উপর।

Read More