মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত ও বেশি বেতন দেয়া কোম্পানির নাম

মালয়েশিয়া যে সকল ভিসা নিয়ে মানুষ যায় তার মধ্যে ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি ভিসা অন্যতম। বর্তমানে ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি ভিসার চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এছাড়াও মালয়েশিয়া গ্লোব কোম্পানির  ভিসার চাহিদা রয়েছে। তবে মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি এর ভিসার জন্য মানুষের আগ্রহ বেশি। কেননা ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরিতে বেতনের পরিমাণ বেশি দিয়ে থাকে। তাছাড়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরিতে ওভারটাইম এর সুবিধা বেশি থাকে। যার ফলে বেতনের পরিমাণ বেশি হয়।

এছাড়াও অন্যান্য কোম্পানির তুলনায় ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরিতে সুযোগ-সুবিধা সবচেয়ে বেশি। আর উন্নত বেতন হওয়ায় চাহিদা বেশি। তাই আপনি যদি মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে ইলেকট্রিক ভিসা নিয়ে যেতে পারেন। আজকের এই পোস্টে আমি মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি, মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি ভিসা, ভিসার দাম, বেতন কত, আপনি কেমন ওভারটাইম পাবেন সবকিছু বিস্তারিত আলোচনা করব।

Table of Contents

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি

মালয়েশিয়া অসংখ্য ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি রয়েছে। শুধু মালয়েশিয়া না পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি রয়েছে। যেগুলো থেকে দেশের প্রয়োজনীয় সকল ইলেকট্রনিক্স তৈরি হয়। আবার কিছু কিছু দেশ তাদের তৈরি ইলেকট্রনিক পণ্য বাইরের দেশে রপ্তানি করে থাকে। মালয়েশিয়া তাদের মধ্যে অন্যতম। মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কোম্পানিগুলো থেকে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নানা ধরনের যন্ত্রপাতি রপ্তানি হয়ে থাকে।

আজকের এই পোস্টে আমি মালয়েশিয়ার বিখ্যাত কিছু ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরির নাম তুলে ধরবো। অনেকেই আছে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য ভাবছেন। আবার অনেকেই মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরিতে যেতে যাচ্ছেন। তাদের জেনে রাখা ভালো মালয়েশিয়ার কোন কোন ইলেকট্রিক কোম্পানিগুলো বিখ্যাত। এবং কোন কোন ফ্যাক্টরিতে সুযোগ-সুবিধা সবচেয়ে বেশি ও বেতন সবচেয়ে বেশি। চলুন এবার নিচে থেকে দেখে নেয়া যাক বেতন বেশি দিয়ে কোম্পানির নাম।

১। Panasonic – অবস্থিত কুয়ালামপুর।

২।  Wistron – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৩। Dyson – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৪। Yokogaya – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৫। ams OSRAM – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৬। Mettler Toledo – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৭। Infineon Technologies – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৮। Plex – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

৯। Emerson – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

১০। Onsemi – কুয়ালামপুর অবস্থিত।

উপরে আমি যে সকল কোম্পানির নাম তুলে ধরেছি এ সকল কোম্পানিতে যদি আপনি কোন ভাবে ঢুকতে পারেন তাহলে আপনার কপাল খুলে যাবে। কেননা মালয়েশিয়ার মধ্যে এই সকল কোম্পানিগুলো টপ। এগুলোর থাকা খাওয়ার সুযোগ সুবিধা সব কিছু বেশি বেশি। আর এই কোম্পানিগুলোর বেসিক বেতন ৭০ হাজার টাকার উপরে। ওভারটাইম করে ১ লক্ষ টাকার উপরে অনায়াসে অর্জন করতে পারবেন।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রনিক ফ্যাক্টরি ভিসা

বর্তমানে মালয়েশিয়া ফ্যাক্টরি ভিসা পাওয়া খুবই কঠিন। তবে আপনার জন্য ভিসা পাওয়া খুবই সহজ হবে যদি আপনার পরিচিত কেউ মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কোম্পানিতে থেকে থাকে। যদি আপনার পরিচিত কেউ মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরিতে থেকে থাকে তাহলে তার মাধ্যমে আপনি ভিসা বের করে নিতে পারবেন। তবে ইলেকট্রিক কোম্পানিতে ভিসা বের করার পূর্বে আপনার ইলেকট্রিক কাজ সম্পর্কে অভিজ্ঞ হতে হবে।

তাই যদি আপনি মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ফ্যাক্টরি ভিসা নিয়ে যেতে চান তাহলে আপনাকে ইলেকট্রিক কাজের প্রতি দক্ষতা অর্জন করে তারপর যেতে হবে। ইলেকট্রিক কাজের প্রতি দক্ষতা না থাকলে আপনি এই কোম্পানিতে সহজে হিসাবে বের করে নিতে পারবেন না। তবে আপনি অভিজ্ঞ হলে খুব সহজেই ফ্যাক্টরির ভিসা পেয়ে যাবেন। এছাড়াও আপনি দালালের মাধ্যমে ভিসা আবেদন করে নিতে পারেন।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেসিক বেতন ধরা হয় ৬০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকা। এই বেতন আপনি শুরুতেই পাবেন। তাছাড়া অভিজ্ঞতা অনুসারে বেতন বাড়িয়ে দেয়া হয়। আবার এখানে রয়েছে ওভারটাইম করার সুবর্ণ সুযোগ। এই কোম্পানিগুলোতে আপনার ৮ ঘন্টা ডিউটি থাকবে। আর ২ থেকে ৪ ঘন্টা ওভারটাইম থাকবে। সব মিলিয়ে আপনার বেতন হবে প্রায় ১ লক্ষ টাকার উপরে যদি আপনি ওভারটাইম করেন।

এছাড়াও মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কোম্পানিতে যারা দীর্ঘদিন যাবত রয়েছে তারা ২ লক্ষ টাকাও উপার্জন করে। দীর্ঘদিন অভিজ্ঞতা থাকার কারণে ইলেকট্রিক কোম্পানি তাদেরকে ফোরম্যান পদে নিয়োগ দেয়। যার কারণে তাদের বেতনের পরিমাণ বেড়ে যায়। তাই আপনি যদি আপনার বেতন বাড়াতে চান তাহলে বেশি বেশি দক্ষতা অর্জন করে তাদের সামনে তা দেখানোর চেষ্টা করুন। দেখবেন আপনার বেতন অনেক বেশি হবে।

প্যানাসনিক কোম্পানি মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়া যে সকল ইলেকট্রিক কোম্পানি রয়েছে তার মধ্যে প্যানাসনিক অন্যতম। শুধু মালয়েশিয়া বললে ভুল হবে সারা বিশ্বব্যাপী প্যানাসনিক কোম্পানির কদর রয়েছে। প্যানাসনিক ইলেকট্রনিক কোম্পানি মোবাইল থেকে শুরু করে সব ধরনের ইলেকট্রনিক্স যন্ত্রপাতি প্রায় তৈরি করে। এই কোম্পানির গুণগতমান অনেক ভালো। এই কোম্পানিতে যারা কাজ করে তারা বলতে পারবে এই কোম্পানির সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে।

এখানে টিভি, ফ্রিজ, এসি সকল প্রকারের ইলেকট্রনিক্স পণ্য তৈরি করা হয়। এই কোম্পানি শ্রমিকদের অনেক সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে এবং ভালো মাসিক বেতন দিয়ে থাকে। তাছাড়া এই কোম্পানিতে ওভার টাইম করে ভালো বেতন পাওয়া যায়। যে সকল প্রবাসী মালয়েশিয়া রয়েছে তারা এই কোম্পানির সম্পর্কে ভালোভাবেই জানে।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসার দাম কত

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসার দাম সবমিলিয়ে ৪ লক্ষ টাকা। এখানে খরচের পরিমাণ বিমান ভাড়া থেকে শুরু করে সব মিলিয়ে ধরা হয়েছে। কেননা বাংলাদেশীরা ভিসার দাম বলতে সব মিলিয়ে যে খরচ হয় সেটাকে বুঝে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে সাধারণত ভিসার দাম ৬০ হাজার থেকে ৮০ হাজার টাকা। অন্যান্য প্রাসঙ্গিক খরাজ মিলে মালয়েশিয়া যেতে অনেক টাকা খরচ পড়ে যায়। এর জন্য মানুষ মনে করে ভিসার দাম অনেক বেশি।

Read More