মালয়েশিয়া কলিং ভিসা খরচ ও আবেদনের নিয়ম

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা খরচ ও আবেদনের নিয়ম

দীর্ঘদিন নানা জটিলতার কারণে মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চালু হয়নি। তবে বর্তমান মালয়েশিয়া সরকার কলিং ভিসা সম্পর্কে বক্তব্য রেখেছে। তারা আশ্বাস দিয়েছে এ বছর কলিং ভিসায় মালয়েশিয়া শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হবে। দীর্ঘদিন মালয়েশিয়া সরকার বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগ দেয়নি। এর মূল কারণ ছিল বাংলাদেশের বিভিন্ন এজেন্সির দালালি নিয়ে। কারণ ভিসা বের করতে যে পরিমাণ খরচ হয় তার ১০ গুন টাকা তারা নিয়ে থাকে। মানুষকে ধোঁকাবাজির এই খেলা দেখে তারা শ্রমিক নেয়া বন্ধ করে দেয়।

তাছাড়া বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর কোন প্রকার পদক্ষেপ না দেখে তারা আরো শ্রমিক নিয়োগে অনীহা দেখাতে থাকে। তবে গত বছরে কিছু সংখ্যক লোক মালয়েশিয়া গিয়েছে। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসে নতুন করে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নেয়ার জন্য চুক্তিপত্র স্বাক্ষরিত হয়। তবে ২০২২ খুব একটা শ্রমিক মালয়েশিয়া যেতে পারিনি। তবে নতুন বছরে তাদের শ্রমিক নেয়ার কথা রয়েছে। এমনকি তারা এ বছর শ্রমিক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে। চলুন এবার নিচে থেকে আরো বিস্তারিত জেনে নেই।

Table of Contents

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা

অনুমোদিত কর্মসংস্থানের জন্য মালয়েশিয়ার কোম্পানিরা খুব শীঘ্রই কলিং কলিং ভিসায় সোর্স কান্ট্রি গুলো থেকে বিভিন্ন সেক্টরে বিদেশী কর্মী নিয়োগ দিতে পারবে। মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান এ কথা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে। তিনি আরো বলেছেন ২০২৩ সালের জুন মাস থেকে পুনরায় মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চালু হবে। জুন মাস থেকে সবাই কলিং ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে।

মানব সম্পদ মন্ত্রী সারাভানান বলেছেন, খুব শিগগিরই মালয়েশিয়ার কোম্পানি বা মালিকদের কলিং ভিসায় বিদেশি কর্মী নিয়োগের জন্য অনলাইনে আবেদনের তারিখ ঘোষণা করা হবে। এ সময় তিনি আরো বলেন জুন মাস থেকেই তা কার্যকর ঘোষণা করা হবে। তাই যারা কলিং ভিসাতে মালয়েশিয়া যেতে চাইছেন তাদের জন্য জুন মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এরপর থেকে কলিং ভিসা চালু হবে।

তিনি আরো বলেন ভিসা দ্রুততর করার উদ্দেশ্যে কোন দালাল বা তৃতীয় পক্ষের কাউকে টাকা দিতে বিরত থাকবেন। কেননা মালয়েশিয়া কলিং ভিসা আবেদন করা খুব সহজ। মানব সম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান, ২০২১ সালের ১০ ডিসেম্বর দেশটির মন্ত্রিসভার জরুরি বৈঠকে সম্মত হয়েছিলাম যে বিদেশী কর্মী নিয়োগে বৃক্ষরোপণ খাত ছাড়া অন্য সব খাতে বিদেশি কর্মী নিয়োগ দিতে পারবে, যেমন কৃষি, উৎপাদন,পরিষেবা, খনি ও খনন, নির্মাণ এবং গৃহস্থালি পরিষেবাগুলির জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা আবেদন

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা আবেদনের জন্য আপনাকে www.visamalaysia.com এই ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে। এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর কলিং ভিসা তে ক্লিক করতে হবে। এখানে ক্লিক করার পর আপনার সামনে একটি ইন্টারফেস আসবে। সেখানে আপনার বিভিন্ন তথ্য দিতে বলবে। আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যাদি দিয়ে সেই ফর্ম পূরণ করে নিন। তবে মনে রাখবেন আপনার জন্ম নিবন্ধন অথবা আইডি কার্ড অনুসারে সকল তথ্য পূরণ করবেন।

সবকিছু পূরণ করার পর আপনার আবেদন কনফার্ম হয়ে যাবে। আপনার আবেদন কনফার্ম হওয়ার কিছুদিনের মধ্যে তারা আপনাকে একটি রিটার্ন মেসেজ দিয়ে জানিয়ে দিবে আপনার ভিসা কনফার্ম হয়েছে কিনা এবং আপনি এর যোগ্য কিনা। যদি আপনি কলিং ভিসা পাওয়ার যোগ্য হয়ে থাকেন তাহলে আপনি খুব দ্রুত ভিসা পেয়ে যাবেন। যদি দালালের শরণাপন্ন না হয়ে থাকেন তাহলে আপনার খরচ অনেক কম হয়ে যাবে।

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা খরচ

মালয়েশিয়া শুধু কলিং ভিসা বের করতে খরচ হয় ১৬০,০০০ টাকা। তবে বিমান ভাড়া থেকে শুরু করে সবকিছু মিলিয়ে খরচ হয় ৪ লক্ষ্ থেকে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। যদি আপনি দালালের শরণাপন্ন হয়ে থাকেন তাহলে আপনার খরচ অনেক বেড়ে যাবে। আবার সবকিছু সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা না থাকায় অনেকে দালালের শরণাপন্ন হয়ে থাকে। অনেক সময় দালালের ধোঁকায় পড়ে তাদের অনেক টাকা-পয়সা খরচ হয়ে যায়।

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা কবে চালু হবে

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা চালু হবে ২০২৩ সালের জুন মাস থেকে। মালয়েশিয়া মানবসম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান  একথা জানিয়ে দিয়েছে। তিনি আরো বলেছেন জুন মাসের কত তারিখ থেকে ভিসা আবেদন শুরু হবে খুব শীঘ্রই তা খোলাসা করা হবে। তবে এটা শিওর থাকবেন যে জুন মাস থেকেই ভিসা আবেদন শুরু হয়ে যাবে।

Read More